গন্ডিবদ্ধ

আকাশে আজ রঙের খেলা,
চলছি আমি ভাসিয়ে ভেলা;
চারিদিকে দেখি দুশ্হহ জ্বালা
কবে পরবে পৃথিবী জয়ের মালা

করব আমি বিশ্ব জয়,
ছিল এই বাসনা আমার;
দেখে পৃথিবীর পরাজয়,
দমন করি ইচ্ছে আপনার

সবাই আছে সীমিত আপনারই গন্ডিতে,
বেধে রাখার প্রয়োজন নেই পৃথিবীতে;
কখনো টেলিভশন
কখনো ভিডিও গেম
কখনো ফেইসবুক বা whatsapp;
ভুলে গেছি আমরা কথা কইতে

একটু হাসি একটু বসা ,
সবাই মিলে করি প্রানের কথা ,
সেই ইচ্ছে মনে নিয়ে ,
রাখি আমি আজ কলম আমার

15th Dec 2015 (Allahabad to Lucknow journey after attending a reception)

পাঁচশত প্রাণ

ধরণী তুমি বাধাহীন
রহ নাহি কারো অধীন;
বড়ই নিঠুর তব রূপ,
প্রহরে প্রহরে দেখেছি
তব বিচিত্রও স্বরূপ.

যবে তুমি রচেছিলে এই ধরা,
কেহ নাহি জনিতো আসিবে এমন খড়া:
পাঁচ শত প্রাণ হয়ে গেলো ম্লান-
শিহরি উঠিলো চিত্ত,
ভাবিয়া হলো মন বিচলিত:

খনেক খ্হান্ত হও হে ধরণী
যারা মড়িতেছে তারা তোমার সৃস্টি;
কারো সন্তান কারো জননী
ওসময়ে ডুবে গেলো তারা যে তোমার ই  প্রাণী.

জোড়হস্তে নতো মস্তকে এই বিনতি আমার-
খনেক সান্তো হও
সবুজ করো এই পৃথিবী আবার.

…………….25/5/15 (LKO) on the death of 500 people in Andhra on heat wave

সারঙ্গকটএর সূর্যোদয়

বসে আছি আমি একা প্রভাতের আশায়
কবে দেবে প্রভাতরবি দেখা আমায়;
মেঘরাশি খেলিতেছে পাহাড়ের চূড়ায়
ধরণী সাজিতেছে সূর্যের আশায়;

বসে আছি আমি একা প্রভাতের আশায়.

চেয়ে আছি দিগোন্তো পানে
কবে হবে ভোর,
দেখিব রবিরশি করিতেছে শিখর প্রখর;

হে সুর্যো, দেখা দাও তুমি;
বসে আছি আমি একা প্রভাতের আশায়.

ধীরে ধীরে সরে গেলো মেঘরাশিমালা–
নীলাকাশে দেখা দিল সহস্র রংএর খেলা.

রবি, বিচিত্র তোমার রূপ
তুমি উদার
তুমি কোমল
তুমি নির্মল
তুমি শান্ত
তোবো বীণা হতো  নাতো ধরণী প্রশান্ত

পরি গেলো রব
চলো চলো সব–
চাহীয়ো না বেশি
হয়েছে প্রখর রবি.

রবি, এতো তোমার নবজাতো শিশুর রূপ.
যবে এসেছিলে ভবে
সাথে এনেছিলে ধরণিতে
কোমল নির্মল শান্ত রূপ.

খনেকের মাঝেই
এ কী বিকট তোমার রূপ.

হলে তুমি প্রখর
হলে তুমি উত্তেজিতো
হলে তুমি নির্মম–

ধারণ করিলে তুমি
আজিকার মনুষ্য়রূপ.

………25/4/15 (LKO) 5 am….on the same morning Nepal Earthquake